Golden Cauldron Logo

“বলো দুগ্গা মাই কি!”


by published


পুরাণের দূর্গা যেমন দশহাতে সমান ক্ষমতা বিশিষ্ট নারী, আজকের নারীরাও ঠিক তেমনই সবক্ষেত্রে সমান ভাবে পারদর্শী।তা সত্বেও প্রতিদিনের খবরের কাগজই বলে দেয় বর্তমান নারীর অবস্থান। অবশ্য মেয়েরা আজ অবহেলিত হলেও রুখে দাঁড়ানোর সাহস দেখাচ্ছে বহু প্রতিকূলতায়। কবি মল্লিকা সেনগুপ্তের কথায়-

“আমার দুর্গা মেধা পাটকর, তিস্তা শীতলাবাদেরা
আমার দুর্গা মোম হয়ে জ্বালে অমাবস্যার আঁধেরা”

১৯১১ সালের ৫ মে অধুনা বাংলাদেশের চিটাগাং-এর এক মধ্যবিত্ত পরিবারে প্রতিভাময়ী দেবী আর জগবন্ধু ওয়াদ্দেদারের কোলে জন্ম নেন অগ্নিকন্যা প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার। স্কুল কলেজের গণ্ডি পেরিয়ে প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের সাথে যুক্ত হন। ১৫ জন বিপ্লবীদের নেতৃত্ব দিয়ে প্রীতিলতা পাহাড়তলীর ইউরোপিয়ান ক্লাব আক্রমণ করেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ধরা পড়ে গিয়ে দেশের জন্য হাসি মুখে মৃত্যু বরণ করেন।

১৯৬২ সালের ১৭ মার্চ, পাঞ্জাবের একটি অপরিচিত গ্রামে জন্ম নিলেন কল্পনা চাওলা। ছোটোবেলা থেকে স্বপ্ন দেখতেন আকাশে ওড়ার। সেই স্বপ্নের উড়ানে ভর করে "Mission STS-87","Mission STS-107"-এর সঙ্গী হয়ে পাড়ি দেন তারাদের দেশে। ৩১দিন ১৪ ঘণ্টা ৫৪ মিনিট তিনি ভেসে বেড়িয়েছিলেন মাধ্যাকর্ষণকে উপেক্ষা করে। মাত্র ৪০ বছর বয়সে মহাকাশযান ঘটিত দুর্ঘটনার কারণে আকাশগঙ্গার বুকেই হারিয়ে যান ভারতের এই স্বপ্নকন্যা।

১৯৯২ সালে পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলায় ২৫ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেন ঝুলন গোস্বামী। ছোটোবেলা থেকেই গলির ক্রিকেট খেলতে খেলতে ওভার বাউন্ডারি মেরে ছিলেন স্বপ্নকে। সেই স্বপ্নটাই পাড়ি দিয়ে ছিল ভারতের জাতীয় মহিলা ক্রিকেট টিমে, ১ ফেব্রুয়ারি, ২০০৯ সালে। খেলার ছলে যেভাবে মেয়েটা প্রথম দিন ব্যাটটাকে হাতে তুলেছিল ঠিক সেই ভাবেই ভারতের জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্বটাও কাঁধে তুলে নিয়েছিল নির্ভয়ে।

১৯৮৯ সালের ৯ জুলাই কলকাতায় জন্ম নিল তুষার কন্যা ছন্দা গায়েন। ছোটোবেলায় রঙবেরঙের ছবির বইয়ে পাহাড় দেখতে দেখতে নিজের অজান্তেই মেয়েটা প্রেমে পড়ে যায় ভয়ঙ্কর সুন্দরের। ১৮ মে, ২০১৩ সে পৌঁছে যায় স্বপ্নের উচ্চতম চূড়ায়, মাউন্ট এভারেস্টে। এরপর তার অদম্য ইচ্ছে জয় করতে থাকে একের পর এক পর্বত। ২০১৪-এর ২০ মে কাঞ্চনজঙ্ঘার বরফের চাদরে চাপা পড়ে যায় এই তুষার হৃদয়।

এমন আরও অনেক টুকরো টুকরো গল্প ছড়িয়ে আছে বাস্তবের দুর্গার। তারা কেউ ফুটপাতে, কেউ একচালা ঘরে আবার কেউ তথাকথিত নিষিদ্ধ পল্লীতে। তারা প্রত্যেকেই রক্ত মাংসের দুর্গা, তারা প্রত্যেকেই ত্রিশূল ছাড়াই প্রতিনিয়ত লড়ে যাচ্ছে বাঁচার জন্য।

"হে মহামানবী, তোমাকে সেলাম।"